ফেইসবুক পেইজের রিচ বাড়ার ১০ টিপস

সীমা ফেইসবুকে নতুন পেইজ খুলেছেন। পেইজ খোলার পর তার চিন্তার শেষ নেই । কারণ আমরা সবাই পেজ রিচ করতে চাই। পেইজ রিচ মানে ধনী হয়ে যাওয়া । নাহ , আর্থিকভাবে ধনী নয় , বরং গ্রাহকের কাছে দেখানো বা পৌঁছানোর ব্যাপারকে রিচ বলে ।
নতুন পেইজ রিচ করতে এই নিয়মগুলো ফলো করা উচিত। যেমন –
১, প্রতি ৪ ঘন্টা পর পর একটি পোষ্ট দিতে হবে।
২, নতুন নতুন প্রডাক্টের ছবিই দিতে হবে এমনটা নয়, আপনি চাইলে আগের পোস্ট গুলোও ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দিতে পারেন। সমসাময়িক দিবসগুলোতে শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্ট দিতে পারেন ।
৩, সবসময় সেল পোস্ট না দিয়ে মাঝে ব্যতিক্রম কিছু পোস্ট দিন। যেমন ধরুন, আপনার পন্যটা কেমন? কেন এটি সবার থেকে আলাদা ? বিজনেস সম্পর্কে কোন অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন। কোটেশন দিতে পারেন ।
৪, নির্দিষ্ট কিছু সময় থাকে যখন পোষ্টের এংগেজমেন্ট বেশি থাকে সেটি খেয়াল রেখে পোস্ট দিতে হবে।
৫, দিনের কোন সময়টাতে পোষ্ট দিলে বেশি রিচড হয় সেটা খেয়াল রেখে ঐ সময় গুরুত্বপূর্ন পোস্ট দিন। কি ধরনের পোস্ট বেশি রিচ হয় সেটা ও খেয়াল করবেন ।
৬, সাধারণত দুপুরের পর ৩টা থেকে ৪ টার দিকে পোস্ট রিচ হয় কারন এ সময় মানুষ একটু বিশ্রাম নেয়।
৭ , কথায় আছে, এক হাজার শব্দের চেয়ে একটি ছবি উত্তম। কারণ, একটি ছবি অনেক কিছু বলে দেয়। তাই আপনি আপনার পোস্টে বেশি এনগেজমেন্ট পেতে ছবি ব্যবহার করুন। ছবির সঙ্গে অবশ্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জুড়ে দেবেন।
৮, মাঝে মাঝে ভিডিও আপলোড করবেন। এখন ফেসবুকে ওয়াচ নামে একটি ট্যাব আমরা ফেসবুক অ্যাপে দেখতে পারি। ফলে আপনি যদি পেইজে ভিডিও আপলোড করেন তাহলে সেটা লাইফটাইম ভিউ হওয়ার একটা আশঙ্কা থাকে। যেটা আপনার পেইজের রিচ বাড়ানোর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
৯, আপনি যদি ফেসবুকে পণ্য বিক্রির ব্যবসা চালান তাহলে মাঝে মাঝে ফেসবুক লাইভে আপনার প্রোডাক্ট গুলো দেখাবেন। এতে কাস্টমারের সাথে আপনার যেমন সুসম্পর্ক তৈরি হবে তেমনি আপনার পেইজের রিচ এবং ইম্প্রেশন বেড়ে যাবে।
১০ , পোস্ট সিম্পল রাখুন, সব সময় লম্বা পোস্ট দেওয়ার দরকার নাই। ফ্যানদের অল্প কথায় আপডেট দিন। এগুলো এনগেজমেন্টে বেশ ভালো ভূমিকা রাখবে।

অনামিকা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here